মাদ্রাসার সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

ব্রহ্মপুত্র নদের তীর ঘেষে সবুজের সমারোহে গফরগাঁও উপজেলাটি প্রাচীন ইতিহাস ও ঐতিহ্যের এক লীলাভূমি । গফরগাঁও উপজেলার লোকগাঁথার অফুরন্ত ভান্ডার ‘বাগুয়া’ গ্রামের ঐতিহ্যবাহী গোলন্দাজ পারিবারের প্রক্ষাত ব্যবসায়ী, শিক্ষাবিদ ও মহীয়ান ব্যক্তিত্ব, প্রয়াত জাতীয় সংসদ সদস্য মরহুম আলতাফ হোসেন গোলন্দাজ এর পিতা এবং বর্তমান মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য জননেতা জনাব ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল (এম পি) মহোদয়ের দাদা মরহুম রোস্তম আলী গোলন্দাজ ১৯৫১ সালে এ জনপদের সাধারণ মানুষের মধ্যে ধর্মীয় ও আধুনিক শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে একক দানে ১ একর ৩ শতাংশ জমিতে ‘গফরগাঁও জে. এম. সিনিয়র মাদ্রাসা’ নামে এই মাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা করেন । প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই মাদ্রাটিতে এবতেদায়ী প্রথম শ্রেণি হতে ফাজিল ( ডিগ্রি ) স্তর পর্যন্ত এমপিও ভুক্তিসহ পাঠদান চালুছিল। পরবর্তীতে জননেতা জনাব ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল (এম পি) মহোদয়ের একান্ত প্রচেষ্ঠায় ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে ২০২০ সাল হতে কামিল ( এম. এ ) স্তরে পাঠদান প্রক্রিয়া চালু করা হয়। বর্তমানে মাদ্রাসাটির নাম “ গফরগাঁও জে. এম. কামিল ( স্নতকোত্তর) মাদ্রাসা”। মাদ্রাসাটি ১৯৬৩ সালের ১ জুলাই প্রথম দাখিল ও আলিম স্তরের স্বীকৃতি লাভ করে এবং ১৯৬৪ সালের ১ মাচ ফাজিল ( ডিগ্রি) স্তরে স্বীকৃতি লাভ করে। ২৩ মাচ ২০২০ সালে প্রথম কামিল ( স্নাতকোত্তর) শ্রেণিতে পাঠদানের অনুমতি প্রাপ্ত হয়।

মাদ্রাসাটি মায়মনসিংহ জেলার মধ্যে শিক্ষার্থীর সংখ্যা, দাখিল, আলিম , ফাজিল ও কামিল শ্রেণিতে বাংলাদেশ মাদ্রসা বোর্ড এবং ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা সমূহে শত ভাগ ( ১০০%) পাসের হার অজন, আধুনিক অবকাঠামো ও সুশৃংখল পরিবেশের জন্য প্রসিদ্ধী লাভ করেছে এবং      গত তিন বছর ধরে ময়মনিসং জেলার মধ্যে ধারাবাহিক ভাবে শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা পদকে ভষীত হয়ে আসছে।

Wellcome to our website...